রহস্য উন্মোচন হচ্ছে ৪ হাজার বছর পুরনো গিজা পিরামিডের

মিশরের গিজা পিরামিডকে ঘিরে রহস্য ক্রমশ ঘনীভূত হচ্ছে। এর ভিতরে নাকি লুকিয়ে রাখা আছে কোটি কোটি টাকার সম্পত্তি। তারই সন্ধানে উঠে পড়ে লেগেছেন বিজ্ঞানীরা। পাইলেও পাইতে পারো অমূল্য রতন এমন বিষয়ের মতো আর কি! তা সেই গিজা পিরামিডের মধ্যে নাকি আছে গোপন কক্ষ। সেই গোপনীয়তা নিয়েই যত গোলমাল।

প্রত্নতত্ত্ববিদরা দাবি করছেন, মিশরের দ্য গ্রেট গিজা পিরামিডের ভিতরে যে রয়েছে কোনও রহস্য। গিজা পিরামিড। ৪ হাজার বছরের পুরনো। ৪৭৯ ফিট উঁচু। বিশ্বের সর্বাধিক প্রাচীন ধারার পিরামিড বলা হয় একে। সাত আশ্চর্যের মধ্যে এর রহস্যই সবথেকে বেশি। তা প্রকাশ্যে আনতেই এবার কোমর বেঁধে লেগে পড়েছেন বিজ্ঞানীরা।

শুরু হয়েছে স্ক্যান পিরামিড নামে এক মিশন। গিজা পিরামিড,যা বেশি পরিচিত খুফু পিরামিড নামে, তার রহস্য উন্মোচনের কাজ শুরু হয়েছে। একটি গোপন কক্ষ রয়েছে বলে দাবি করে বিজ্ঞানী মেহদি তায়োবি বলছেন, এখন সেই গোপন কক্ষটি খোঁজার কাজ চলছে। সেই অনুসন্ধান প্রক্রিয়ায় ব্যবহার করা হচ্ছে থার্মোগ্রাফি। তাপের সাহায্যে পিরামিডের ভেতরে কোথাও কি রয়েছে, তার হদিস পাওয়ার চেষ্টা করছেন বিজ্ঞানীরা। আরও একটি চেম্বার রয়েছে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

তবে এখনও সে সম্পর্কে নিশ্চিত কোনও তথ্য মেলেনি। ইজিপ্টের কনিষ্ঠতম ফ্যারাও তুতেনখামেনের মমি আবিষ্কারের পাশাপাশি, উদ্ধার হয়েছিল বিপুল সম্পত্তি। সেভাবেই রানি নেফারতিতির সমাধিও আবিষ্কৃত হবে বলে আশা করছেন তাঁরা।

ফারাও ইখনাতেনের স্ত্রী নেফারতিতি জীবিত থাকাকালীন খুব শৌখিন ছিলেন বলে ইতিহাস জানায়। তাই তাঁর সমাধিস্থলেও থাকতে পারে গোপন কক্ষ, যেখানে হয়তো লুকিয়ে আছে মূল্যবান অনেক কিছু। তারই সন্ধানে খোঁজ চলছে। বাকিটা সময়ের গহ্বরে।

সুত্রঃ bd-pratidin