যথেষ্ট ধৈর্য ধরছি: প্রধান বিচারপতি

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, ‘আমরা বিচার বিভাগ ধৈর্য ধরছি। যথেষ্ট ধৈর্য ধরছি। আজকে একজন কলামিস্টের লেখা পড়েছি, সেখানে ধৈর্যের কথাই বলা আছে।’

রবিবার (২০ আগস্ট) নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃংখলা সংক্রান্ত বিধিমালা গেজেট প্রকাশের শুনানিকালে অ্যাটর্নি জেনারেলকে উদ্দেশ্য এসব কথা বলেন তিনি।

শুনানি শেষে গেজেট প্রকাশে ৮ অক্টোবর পর্যন্ত সময় দিয়েছে আদালত। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন ৬ বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। আজকে (রবিবার) এ সংক্রান্ত মামলার শুনানি শুরু হলে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম আবারও সময় আবেদন করলে আপিল বেঞ্চ এ সময় মঞ্জুর করে।

এ সময় প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘গত তারিখে কী কথা ছিল? কার সঙ্গে কে কে থাকবে তা ঠিক করে আলাপ-আলোচনা করার কথা ছিল। কে কে থাকবে?’ জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘ল মিনিস্টার।’

তখন আদালত বলেন, ‘অল দ্যা জাজেস অব অ্যাপিলেট ডিভিশন। অামাদের সঙ্গে আলোচনা পর্যন্ত করলেন না? আপনারা মিডিয়াতে অনেক কথা বলেন। কোর্টে এসে অন্য কথা বলেন। আপনাদের বলছি, আপনাকে নয়। আপনিই বলেন। কবে কী হবে?’

তখন অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘একটা আনস্ট্যাবল সিচুয়েশন তৈরি হয়েছে।’ প্রধান বিচারপতি আনস্ট্যাবল সিচুয়েশনের ব্যাপারে জানতে চাইলে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘সবটা নিয়েই আমি বিব্রত।’

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আপনারা ঝড় তুলছেন। আমরা কোনও মন্তব্য করেছি?’ অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, ‘না, আপনারা করেননি।’ প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আপনার চাওয়া মতো ৮ তারিখ রাখলাম।’

এ সময় এ মামলার বাদীপক্ষের আইনজীবী ব্যারিস্টার এম আমীর উল ইসলাম তার আবেদনের শুনানির আরজি জানান।

জবাবে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘আমরা বিচার বিভাগ ধৈর্য ধরছি। যথেষ্ট ধৈর্য ধরছি। আজকে একজন কলামিস্টের লেখা পড়েছি…সেখানে ধৈর্য্য কথাই বলা আছে। পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট প্রধানমন্ত্রীকে অযোগ্য করলো। সেখানে কিছুই (আলোচনা-সমালোচনা) হয়নি। আমাদের আরও পরিপক্কতা দরকার।’

source: http://www.breakingnews.com.bd/bangla/law-court/34983.online