উ. কোরিয়ার সঙ্গে যুদ্ধের জন্য রণতরী নামাচ্ছে যুক্তরাজ্য!

যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে সংঘাতের সম্ভাবনা ক্রমশই বাড়ছে। এরই মধ্যে কার্যত যুদ্ধের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে ব্রিটেন। যে কোনও সময় যুদ্ধ হতে পারে, এ আশঙ্কায় নিজেদের প্রস্তুত করছে তারা। সোমবার ব্রিটেনের মিডিয়া রিপোর্টে একথা উল্লেখ করা হয়েছে।

জানা গেছে, ব্রিটেন তাদের এয়ারক্রাফট কেরিয়ার এইচএমএস কুইন এলিজাবেথ মোতায়েন করছে। এছাড়াও মাঝ সমুদ্রে পাঠানো হচ্ছে টাইপ-৪৫ ডেসট্রয়ার, টাইপ-২৩ ফ্রিগেট। পরিস্থিতি বিগড়ে গেলেই চালু করা হবে এগুলি। পাশাপাশি চলতি বছরেই ট্রায়ালের পর নৌবাহিনীর হাতে তুলে দেওয়া হবে নতুন এয়ারক্রাফট কেরিয়ার।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প কিংবা উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিম জং উন, কেউই নিজেদের অবস্থান থেকে এতটুকু নড়তে রাজি নন। তাই যুদ্ধের আশঙ্কায় দ্রুত প্রস্তুতি নিচ্ছে ব্রিটেন।

এদিকে, উত্তর কোরিয়া নিয়ে আবার একটি আশ্চর্যজনক বিবৃতি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেন, উত্তর কোরিয়ার ক্ষেত্রে “একমাত্র একটি জিনিসই কাজ করে”। তবে কী সেই জিনিস, তা নিয়ে মুখ খোলেননি মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

ট্যুইটারে ট্রাম্প বলেছেন, প্রেসিডেন্ট ও কর্তৃপক্ষ উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে ২৫ বছর ধরে কথা বলছে। অনেক চুক্তি হয়েছে ও অনেক টাকা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কাজ হয়নি, কালি শুকিয়ে যাওয়ার আগেই চুক্তি অতিক্রান্ত হয়ে গেছে। মাত্র একটি জিনিসই উত্তর কোরিয়ার ক্ষেত্রে কাজ করবে। তবে সেই “জিনিস”-টা যে কী, তা কিন্তু ট্রাম্প খোলসা করেননি। তবে তাঁর মাথায় যে যুদ্ধের চিন্তাভাবনা রয়েছে, তা স্পষ্ট।

এর আগে প্রেসিডেন্ট বলেছিলেন, দরকার পড়লে উত্তর কোরিয়াকে “সম্পূর্ণ ধ্বংস” করে দিতে পারে আমেরিকা। উত্তর কোরিয়া পরমাণু বোমা বিস্ফোরণ করার কথা বলার পরই একথা বলে ওয়াশিংটন৷ এই সপ্তাহের প্রথমে মার্কিন সেনার উচ্চ পদস্থ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন ট্রাম্প। তখন তিনি বলেন, “এটা ঝড়ের আগে শান্ত অবস্থা৷” বিষয়টি বিস্তারিত জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আপনারাই খুঁজে নিন। ”

 

সুত্রঃ bd-pratidin